পটুয়াখালীর তেতুলীয়া নদীর ধুলিয়া পয়েন্টে ইলিশ শিকারের সময় দুই পুলিশসহ আটক ৬

নিষেধাজ্ঞা থাকায় পটুয়াখালীর তেতুলীয়া নদীর ধুলিয়া পয়েন্টে ইলিশ শিকারের সময় দুই পুলিশ সদস্যসহ ছয় জনকে আটক করেছে উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগ গঠিত একটি আভিযানিক দল। এ সময় স্পিড বোট নিয়ে আরও ৪ পুলিশ সদস্য পালিয়ে যায়।

আজ রবিবার বিকেলে তেতুলিয়া নদীতে অভিযানের সময় দুই পুলিশ সদস্য ও চার জেলেকে আটক এবং ১টি মাছধরা ট্রলার, বিপুল পরিমাণ ইলিশ ও জাল জব্দ করা হয়।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোল্লা এমদাদুল্যাহ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, বিকেলে বাউফল উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এবং নৌ পুলিশ সদস্যদের সমন্বয়ে একটি দল অভিযানে নামে। দলটি তেতুলিয়া নদীর ধুলিয়া পয়েন্টে ইলিশ ধরারত একটি ট্রলার আটক করে। ওই ট্রলার থেকে বরিশাল বন্দর থানার মো. জুলফিকার ও মোহাম্মদ আলী নামের দুই পুলিশ সদস্য ও ৪ জেলেকে আটক করা হয়।

অভিযানের সময় দুটি স্পিড বোটসহ অন্যরা পালিয়ে যায়। মৎস্য কর্মকর্তা বলেন, আটক দুই পুলিশ সদস্যকে বরিশাল বন্দর পুলিশ কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে এবং এ বিষয়ে তারাই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

বরিশাল বন্দর থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন তালুকদার বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, জুলফিকার ও মোহাম্মদ আলী নামের দুই পুলিশ সদস্য তার থানায় আছেন।

তিনি বলেন, ভোলার ঘটনায় তিনি ব্যস্ত ছিলেন তাই ওই দুই পুলিশ সদস্য আটকের বিষয়ে তিনি এখনও জানেন না। ওই দুই পুলিশ সদস্য কোথায় আছেন তাও তার জানা নেই বলে জানান ওসি।

Total Page Visits: 234 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Shares