বরফে, ধসে অবরুদ্ধ হিমাচল! আটকে বহু পর্যটক, প্রশাসনিক সতর্কতা জারি

কোলকাতা: একেই বোধহয় বলে ভয়ঙ্কর সুন্দর। একদিকে বরফের সাদা চাদরে মুড়ে অপূর্ব দৃশ্য রচনা হয়েছে চারপাশে। অন্যদিকে আবার সেই সৌন্দর্যের মধ্যেই খবর আসছে তুষারধসের। সব মিলিয়ে হিমাচলপ্রদেশ তুমুল তুষারপাতে যেন বিধ্বস্ত হয়ে রয়েছে।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সিমলার তাপমাত্রা শূন্যের চেয়ে দু’ডিগ্রি নীচে। গত কয়েকদিন ধরে নিরবচ্ছিন্ন তুষারপাত হচ্ছে গোটা হিমাচলজুড়ে। রাস্তাঘাট সমস্ত ঢেকে গিয়েছে বরফে, ঢেকে গিয়েছে রাস্তার পাশের বসার চেয়ার। পাহাড়ি গাছগুলোর ডালে ডালে যেন বরফের ঝাঁক ধরে রয়েছে। দিনের বেলা রোদ উঠলেও, সূর্য ডুবতেই হাড়কাঁপানো ঠান্ডায় ছেয়ে যাচ্ছে হিমাচল।

প্রবল বরফে রাজ্যের প্রায় ২৫০টি রাস্তা বন্ধ হয়ে গেছে। বহু পর্যটক আটকে পড়েছেন। তুষারধসের খবর এসেছে রাজ্যের একাধিক প্রান্ত থেকে। এখনও কোনও হতাহতের খবর এসে না পৌঁছলেও, পরিস্থিতি যে কোনও সময় খারাপ হতে পারে বলে বারবার সতর্ক করছে প্রশাসন।

এ সবের মধ্যেই বহু পর্যটক শুধু বরফ দেখতেই সিমলায় ভিড় জমাচ্ছেন৷ কিন্তু প্রশাসন সতর্কতা জারি করে পর্যটকদের আসতে বারণ করছে। সরকারি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত পর্যটকরা যেন সেখানে না যান।

সিমলা পুলিশ জানিয়েছে, শহরের সঙ্গে সংযোগকারী সমস্ত রাস্তা বন্ধ। বরফের পুরু আস্তরণের জেরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে রয়েছে গাড়ি। ফলে রাস্তা না খোলা পর্যন্ত সেখানে না যাওয়াই ভাল। একই নির্দেশ দিয়েছে কুলু পুলিশও। ভারী তুষারপাতের জেরে মানালির অধিকাংশ রাস্তাও বন্ধ হয়ে রয়েছে।

আবহাওয়া দফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে পাঁচটা থেকে বুধবার সকাল সাড়ে আটটা পর্যন্ত সিমলায় বরফ পড়েছে ২০ সেন্টিমিটার। ডালহৌসিতে বরফ পড়েছে ৩৫ সেন্টিমিটার, মানালিতে ২২ সেন্টিমিটার। তবে সব জায়গাকে ছাপিয়ে গেছে খাড়াপথ এলাকা। সেখানে ৬০ সেন্টিমিটার বরফ পড়েছে। যে কোনও সময়ে তুষারধস নামতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে।

Total Page Visits: 405 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares