করোনা: পরীক্ষা হল ট্রাম্পের, প্রকোপ বাড়ছে স্পেনে

এত দিন তেমন পাত্তা দেননি। এ বার অবশ্য নোভেল করোনাভাইরাসের জন্য ডাক্তারি পরীক্ষা করিয়েছেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছেন তিনি।

গত কাল তিনি বলেছিলেন, কোনও রকম লক্ষণ না থাকলেও পরীক্ষা করিয়ে নিচ্ছেন। যদিও মাত্র এক দিন আগে হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল, ট্রাম্পের ডাক্তারি পরীক্ষার কোনও প্রয়োজন নেই।

দিন কয়েক আগে ট্রাম্প ফ্লরিডায় তাঁর পাম বিচের রিসর্টে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো, তাঁর প্রেস সচিব ফ্যাবিয়ো ওয়াজনগার্টেন-সহ কয়েক জনের সঙ্গে নৈশভোজে যোগ দিয়েছিলেন। পরে জানা যায়, ওই দলে থাকা ফ্যাবিয়ো-সহ দু’জন ব্রাজিলে ফেরার পরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বোলসোনারো অবশ্য আক্রান্ত হননি বলেই দাবি।

অনেকে মনে করছেন, পরিস্থিতি সুবিধের নয় বুঝে ট্রাম্পও এখন পরীক্ষা করাতে রাজি হয়ে গিয়েছেন! কন্যা এবং উপদেষ্টা ইভাঙ্কা ট্রাম্পও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, আপাতত বাড়ি থেকে কাজ করবেন। অস্ট্রেলিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পিটার ডাটন গত সপ্তাহে বৈঠক করেছিলেন ইভাঙ্কা এবং মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বারের সঙ্গে। কাল ডাটন করোনায় আক্রান্ত হন। তাই এ বার সাবধানী ইভাঙ্কাও।

করোনা-আতঙ্ক
• স্পেনে এক দিনে আক্রান্ত ১৫০০, তালাবন্দি গোটা দেশ
• এখনও পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে মৃত ৫৩৮৮
• আক্রান্তের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ১,৪২,৩২০
• বাড়ি থেকে কাজ শুরু মেলানিয়া ট্রাম্পের
• জন্মানোর কয়েক মিনিটের মধ্যে লন্ডনে আক্রান্ত সদ্যোজাত

করোনা নিয়ন্ত্রণে ফেডারেল ফান্ড থেকে ৫ হাজার কোটি ডলার পর্যন্ত খরচের সীমা ঠিক করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। আমেরিকায় ৪১ জনের প্রাণ গিয়েছে করোনায় আক্রান্ত হয়ে। গত কালই হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। আগামী আট সপ্তাহ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ব্রিটেন এবং আয়ারল্যান্ডের পর্যটকদের আমেরিকা প্রবেশে এত দিন নিষেধ না চাপালেও এ বার তাঁদেরও তালিকাভুক্ত করা হবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন।

রাষ্ট্রপুঞ্জের সব কর্মীকে বলা হয়েছে বাড়ি থেকে কাজ করতে।

অবস্থা গুরুতর ব্রিটেনেও। লন্ডনের হাসপাতালে জন্মানোর কয়েক মিনিটের মধ্যে এক সদ্যোজাতের দেহে কোভিড-১৯-এর উপসর্গ ধরা পড়েছে। তার মায়ের শরীরে করোনাভাইরাসের চিহ্ন মিলেছে কি না, তা স্পষ্ট নয়। তাঁর পরীক্ষা করানো হলেও এখনও নিশ্চিত করে জানানো হয়নি কিছু। দিন কয়েক আগে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী নাদিন ডরিস আক্রান্ত হয়েছিলেন কোভিড-১৯-এ। আজ তিনি টুইটারে জানান, তাঁর ৮৪ বছরের মা-ও আক্রান্ত। আজ মৃতের সংখ্যা ছুঁয়েছে ২১।

স্পেনে মাত্র এক দিনে ১৫০০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। ইটালির পরে ইউরোপে করোনা সব চেয়ে বেশি থাবা বসিয়েছে এই দেশেই। এখানে আক্রান্তের মোট সংখ্যা এখন ৫৭০০। দেশ জুড়ে সতর্কতা জারি হচ্ছে। গোটা দেশ তালাবন্দি করে রাখার কথা ঘোষণা করেছে প্রশাসন। বাতিল হচ্ছে স্পেনগামী বেশির ভাগ উড়ান।

আপাতত বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তাঁর ছেলেমেয়েরা খেলায় ব্যস্ত। আক্রান্ত স্ত্রী সোফি ফোনালাপে সময় কাটাচ্ছেন। ট্রুডো নিজের বাড়ির বাইরে সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন, ‘‘আমার কোনও উপসর্গ নেই। ভাল আছি। প্রযুক্তির সাহায্যে বাড়ি থেকে কাজ সামলাচ্ছি।’’

ইটালিকে সাহায্য করতে গত কাল চিনের ন’সদস্যের বিশেষজ্ঞ দল রোমে পৌঁছেছে। তাঁরা চার্টার্ড বিমানে চিকিৎসা সরঞ্জাম নিয়ে গিয়েছেন। সংক্রমণ রুখতে রবিবার মাঝরাত থেকে পোলান্ড, নরওয়ের সঙ্গে স্থলসীমান্ত বন্ধ করে দিচ্ছে রাশিয়া।

গ্রিসে আজ কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত তিন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এঁদের মধ্যে দু’জনের বয়স ৬৭ এবং ৯০। গ্রিসে শুক্রবার থেকে বার, রেস্তরাঁ, দোকান, অ্যাক্রোপলিস-সহ বিভিন্ন পর্যটনস্থল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১১৭ থেকে বেড়ে ১৯০ হওয়ার পরেই এই সিদ্ধান্ত। সুপারমার্কেট, ওষুধের দোকান কেবল খোলা। স্কুল-কলেজ-আদালত-সিনেমা-জিম সব বন্ধ হয়েছে আগেই। এক অবস্থা চেক প্রজাতন্ত্রেও।

শনিবার ইরানে করোনা-আক্রান্ত আরও ৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬১১। সর্বোচ্চ নেতা আয়াতোল্লা আলি খামেনেইয়ের শীর্ষ উপদেষ্টা আক্রান্ত বলে দাবি প্রশাসন সূত্রে। এই নিয়ে খামেনেই-ঘনিষ্ঠ দু’জনের দেহে ভাইরাস মিলল বলে জানাচ্ছে প্রশাসন।

/ এবিপি

Total Page Visits: 289 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Shares