অস্বাভাবিক হারে বাড়ছে অনলাইন পোর্টালের সংখ্যা!

অস্বাভাবিক হারে বাড়ছে অনলাইন পোর্টালের সংখ্যা! সুনামগঞ্জে প্রকৃত সাংবাদিকরা হারাচ্ছে গ্রহনযোগ্যতা।

সারা দেশের ন্যায় সুনামগঞ্জেও বাড়ছে অনলাইন পোর্টালের সংখ্যা। বেড়ে গেছে সাংবাদিক ও সম্পাদকদের সংখ্যা।

ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে প্রকৃত সাংবাদিকতার স্থান। মানা হচ্ছে না অনলাইন নিউজ পোর্টাল তৈরীর নীতিমালা। ফলে তথ্য সন্ত্রাস অত্যাধিক হারে বেড়ে গেছে।

হবিগঞ্জের ৪ যুবক আটক ছাগল চুরি করতে গিয়ে আটক

অথচ একটি পত্রিকা কিংবা টেলিভিশন অনুমোদন নিতে বহু কাঠখর পড়াইতে হচ্ছে।

অনলাইন নিউজ পোর্টাল তৈরী করতে মাত্র ২-৫ হাজার টাকা বিনিয়োগ করেই বনে যাচ্ছেন সম্পাদক প্রকাশক কিংবা সাংবাদিক।

সাংবাদিকদের বলা হয় রাষ্ট্রের তৃতীয় স্তম্ভ এবং কেহ কেহ আয়না বলেও অবহিত করেন। সুনামগঞ্জেও এ ধরনের সম্পাদক প্রকাশক কিংবা সাংবাদিকের ছড়াছড়ি।

এ সময় নাম সর্বস্ব নিউজ পোর্টালের বিরুদ্ধে দ্রæত ব্যবস্থা গ্রহন সময়ের দাবীতে পরিনত হয়েছে।

টাকার বিনিময়ে ৮ম শ্রেনী-একাদশ শ্রেণীতে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরাও বনে যাচ্ছেন সম্পাদক ও প্রকাশক।

পাবনা ঈশ্বরদীতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ

তাদের বেশীর ভাগই ১৫-১৮ বছরের রয়েছে। টাকার বিনিময়ে দেয়া হচ্ছে অনলাইন নিউজ পোর্টালের প্রেসকার্ড।

অনেকেই আবার নিজের স্বাক্ষরিত কার্ডে নিজেই সম্পাদক প্রকাশক, স্টাফ রিপোর্টার কিংবা জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি’র কার্ড ব্যবহার করছেন।

অস্বাভাবিক হারে বাড়ছে অনলাইন পোটালের সংখ্যা যার ফলে জেলার সংবাদিকতায় বাড়ছে কপি পেস্টের ব্যবহার।

এসব অপসাংবাদিকতা বন্ধ করতে জেলা প্রশাসন দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে।

সুত্র জানায়, কিছু দিন পূর্বে যারা ছিল ব্যবসায়ী, ড্রাইবার, কর্মহীন যুবক, ঠিকাদার কিংবা দালালের কাজে নিয়োজিত,

তারাই আজ এসব অনলাইন নিউজ পোর্টালের বদৌলতে সাংবাদিকতার পূর্ব অভিজ্ঞতা কিংবা উপযুক্ত শিক্ষাগত যোগ্যতা ছাড়াই

হুট করে বনে যাচ্ছেন জেলার বড় মাপের সাংবাদিক।

তারা নিজেদের পরিচয় দিচ্ছেন সম্পাদক প্রকাশক কিংবা সাংবাদিক।

সাতক্ষীরার তালায় ভূমিহীন পরিবারের উপর হামলা

যে কোন দপ্তরে গিয়েই সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/কর্মচারীদের ব্লাকমেইলিংয়ের মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছেন বিপুল পরিমাণ অর্থ।

এ সব পত্রিকা বন্ধ করা সময়ের দাবী। আর এসব অনলাইন নিউজ পোর্টালের কারণে বহুগুনে বেড়ে যাচ্ছে চাঁদাবাজীর ঘটনা।

এদের কারণে প্রকৃত সাংবাদিকরা হারাচ্ছে তাদের গ্রহনযোগ্যতা।

এ সব পত্রিকার মালিকের মধ্যে অনেকেই আবার মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থানরত রয়েছেন, তবুও তারা সম্পাদক।

নিজের পোর্টাল থেকে লাইভের মাধ্যমে জেলার গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ব্যবহার করে তাদের জনপ্রিয়তা হাসিল করে চলছেন।

দুদকের মামলায় গ্রেফতার ওসি প্রদীপ

এতে করে জেলার মূলধারার সাংবাদিকতা হুমকীর মুখে পড়ছে বলে অনেকেই মনে করছেন।

খোজ নিয়ে জানা যায়, কোন কোন ব্যক্তির নামে ২-৫টি নিউজ পোর্টাল রয়েছে।

আর এসব পোর্টালে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের নেতাদের উপদেষ্টা হিসেবে নাম ব্যবহার করে চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের সাংবাদিকতা ব্যবসা।

দেখা যায়, হঠাৎ করে কোন ব্যাক্তি বা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মনগড়া ও তথ্যহীন রিপোর্ট তৈরী করে অনলাইনে সংবাদ প্রকাশ করে তাদের ইমেজ নষ্ট করছে।

আবার উপর থেকে চাপ আসলে সাথে সাথে তা ডিলেট করে দিচ্ছেন।

আবার বড় বড় নেতাদের লাইভে এনে কামাচ্ছেন বাহাবা।

সরকারের তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ গত কিছুদিন পূর্বে বলেছিলেন “সরকার কর্তৃক নিবন্ধন ব্যতিত কোন নিউজ পোর্টালের গ্রহনযোগ্যতা নাই এবং তারা কোন সাংবাদিক নয়।

এদের কারণে সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করা হচ্ছে।”

অথচ একটি পত্রিকার অনুমোদন নিতে সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা বা আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার কর্মকর্তারা বার বার যাচাই বাচাই

করণের মাধ্যমে অনুমোদন দিয়ে থাকেন।

আর এসব পত্রিকা কিংবা গণমাধ্যমের মালিকরা সরকারের কাছে দায়বদ্ধতা থাকেন।

ফলে ইচ্ছে করলেই যে কোন বিষয়ে সংবাদ প্রচার করতে পারেন না।

তিন মাসে সুনামগঞ্জ-নেত্রকোনা হাওড়ে প্রাণ হারালেন ৩৪

এ ব্যাপারে জেলার প্রিন্ট পত্রিকা সম্পাদক ও সিনিয়র সাংবাদিকরা জানান, “যেভাবে অনলাইন নিউজ পোর্টালের সংখ্যা বাড়ছে

সেভাবে বাড়তে থাকলে আমরা প্রকৃত সম্পাদক ও সম্পাদকরা ছিটকে পড়তে হবে।

বন্ধ করে দিতে হবে পত্রিকা। এগুলোর নিয়ন্ত্রন করা দরকার।”

এ ব্যাপারে তথ্য অদিফতরের প্রধান তথ্য কর্মকর্তা সুরত কুমার সরকার বলেন, সরকার এসব অনলাইন নিউজ পোর্টালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে।

এবং তথ্য অধিদফতর কিছু অনলাইন পোর্টালকে আবেদনের প্রেক্ষিতে নিবন্ধন প্রদান করছে।

রাজশাহীর চারঘাটে আইনশৃংখলা সভা অনুষ্ঠিত

যাদের নিবন্ধন পাওয়ার বাকি রয়েছে আগামী মাসের মধ্যে তাদেরকে নিবন্ধন দেয়া সম্পন্ন হবে।

এসময় তিনি আরো জানান, যাচাই বাছাইয়ের মাধ্যমে আবেদনকৃত অনলাইন পোর্টালের মধ্যে যেসব অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোকে

নিবন্ধন দেয়া হবে না তাদের বিরুদ্ধে সরকার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

/ আসা

Shopno Television
The Bangla Wall
http://shopno-tv.com/
Shopno Television
http://shopno-tv.com/
https://shopnotelevision.wixsite.com/reporters
Total Page Visits: 409 - Today Page Visits: 1

সুনামগঞ্জ ডিষ্ট্রিক্ট করেসপনডেন্ট

Name: Md. Abdus Salam E-mail: salamsunamgonj@gmail.com Mobile: 01777-705785, 01715-272834 Fathers Name: Md. Irshad Ali Mother’s Name: Mahmuda Begum Date of Birth: 01st December, 1980 Permanent Address: Vill- Uttor Suriarpar, P.O- Bualia Bazar, P.S- Derai, Dist- Sunamganj. Present Address: West Hajipara, Sunamganj Sadar, Sunamganj. Mailing: Media Center, Pouro Biponi 1st Floor, Sunamganj, Bangladesh. Blood Group: A+

One thought on “অস্বাভাবিক হারে বাড়ছে অনলাইন পোর্টালের সংখ্যা!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares