ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জিয়ার সমাধিতে ফুল দিয়েছে বিক্ষুব্ধরা

ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়েছেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় আংশিক কমিটি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা।

এর আগের দিন ৩১ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ফুল দেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ফজলুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন। গত মঙ্গলবার সংগঠনের বিভিন্ন ইউনিটের নেতা-কর্মীদের নিয়ে জিয়ার সমাধিতে ফুল দেন তারা। তবে বিক্ষুব্ধ অংশের নেতা-কর্মীরা তাদের সঙ্গে যাননি।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার বেলা দুইটার দিকে শেরেবাংলা নগরে জিয়ার সমাধিতে ফুল দিতে যান ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ অংশের নেতা-কর্মীরা। তাদের নেতৃত্ব দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রদলের সদস্য সচিব ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক মমিনুল ইসলাম।

তার নেতৃত্বে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সভাপতি সোহেল রানা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক হাসানুর রহমান ও সদস্য আনিসুর রহমান খন্দকার অনিকসহ ৫০ থেকে ৬০ জন নেতা-কর্মী জিয়ার সমাধিতে ফুল দেন।

এসব নেতা-কর্মীর কয়েকজন ছাত্রদলের নতুন দুই কমিটিতে (কেন্দ্রীয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) পদ পেলেও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়ায় অসন্তুষ্ট ও ক্ষুব্ধ। তারা ইতোমধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে মূল কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন।

ছাত্রদলের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক মমিনুল ইসলাম বলেন, ছাত্রদলের সাম্প্রতিক ইতিহাসে এমনটা কখনো হয়নি যে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আগের দিন শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দেওয়া হয়েছে। অথচ বর্তমান কমিটি সেই ঐতিহ্যের ধারা লঙ্ঘন করেছে। আমরা তাদের সঙ্গে যাইনি।

এ বিষয়ে ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, প্রোগ্রামের জন্য নানা জায়গায় চেষ্টা করেছি। আমরা কোথায় অনুমতি পাইনি। যার কারণে ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউশানে করার জন্য আমাদের আগের দিন এ প্রোগ্রাম পালন করতে হয়।

তিনি আরও জানান, ১ জানুয়ারি বাণিজ্য মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় বিঘ্ন ঘটতে পারে এবং সেখানে ছাত্রদল নিয়ে বিতর্ক উঠতে পারে এমন আশঙ্কায় আমরা আগের দিন ফুল দিতে যাই।

Total Page Visits: 261 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Shares